“শীতবস্ত্রের অভাবে আমার জন্মস্থানের শীতার্থদের কষ্ট পেতে দেয়া হবে না”– ব্যারিস্টার সুমন

চুনারুঘাট প্রতিনিধি : পৌষ মাস সারা দেশে তীব্র শীত পড়েছে। তাই শীতবস্ত্রের অভাবে আমার জন্মস্থান চুনারুঘাট উপজেলার শীতার্থ কাউকে এইবার কষ্ট পেতে দেয়া হবে না। শীত আপনাদের কাছে যাওয়ার আগেই আমি পৌঁছাতে চাই আপনাদের কাছে। আমার শুভাঙ্খাী সহ ফেইসবুক বন্ধু-বান্ধর আছেন তারা কষ্ট করে আপনাদের বাড়ীর আসে পাশের প্রকৃত শীতার্ত মানুষের নাম পাঠানোর আহবান জানাচ্ছি। আপনাদের নাম প্রদানের ভিত্তিতে আগামী ২১শে ডিসেম্বর থেকে ২৬শে ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রাথমিক ভাবে শীতবস্ত্র বিতরন করা হবে। আমাদের একটু কষ্ট মুুক্তি দিতে পারে হাজারো শীতার্তদের। তিনি আরও বলেন-শীতের এই তীব্রতাকে উপো করার জন্য আমরা রকমারি শীত বস্ত্র পরিধান করি। কিন্তু আপনি যে পথ দিয়ে প্রতিনিয়ত চলাচল করছেন সেই পথে বসবাসরত মানুষগুলোর দিকে কি একটু খেয়াল করেছেন? হয়তো ব্যস্ততার মাঝে খেয়াল করা হয়ে উঠে না। চলার পথে একটু থেমে দেখতে পাবেন যে, শীতের তীব্রতাকে উপেক্ষা করার জন্য তাদের কেউ কেউ একটি চটের বস্তা গায়ে জাপড়ে শুয়ে রাত কাটানোর প্রহর গুনছে, কেউ আবার একটি পলিথিন ব্যাগকে আশ্রয় করে শুয়ে আছে, কেউ আবার শুকনো খরকুটো দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে তাপ পোহাচ্ছে আর অপো করছে উত্তপ্ত রবির আলোর জন্য। যা চুনারুঘাটের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোর কি অবস্থা একবার কল্পনা করুন। একটু সহযোগিতায় অসহায় দরিদ্র মানুষকে দিলে হয়তো এবারও শীত থেকে কিছুটা মুক্তি পাবে। আর সেই উপলব্ধি থেকে আমি প্রতিবছরের মত এবারও শীত বস্ত্র বিতরণের উদ্যোগ হাতে নিয়েছি। উপরোক্ত কথাগুলো বলেছেন হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধুবপুর) আসনের আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামীলীগ কার্যকারী নির্বাহী সদস্য ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউট ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।
উল্লেখ্য, প্রকৃত শীতার্তদের তালিকা করে নিম্ন (০১৭১১-৩৮৯০৫২) মোবাইল নাম্বারের যোগাযোগ করার জন্য আনুরোধ করা হল।

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ge-418" />