বানিয়াচঙ্গে মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত

বিশেষ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে বিএসডি মহিলা আলীম মাদ্রাসার এক ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে নূরখাঁ নামে এক মাদকাসক্ত।

বুধবার (৩১ জুলাই) বিকালে সাগর দিঘীর দক্ষিণ পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ছাত্রী লিপি বেগম (১৭) কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে বানিয়াচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
হাসপাতালে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন চিকিৎসক।

আহত লিপি বেগম একই মহল্লার গুঞ্জুর আলীর কন্যা। সে বানিয়াচং বিএসডি বালিকা আলীম মাদ্রাসার ১ম বর্ষের ছাত্রী।

জানা যায়, একই মহল্লার মৃত সঞ্জব আলীর পুত্র মোবাশ্বির মিয়ার সাথে কয়েকদিন পূর্বে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় নূরখাঁর ভাগিনা ফয়েজের সাথে। ঘটনাটি এলাকার মুরুব্বিরা শেষ করে দিবেন বলে উভয় পক্ষকে জানিয়ে দেন তারা।

ঘটনার দিন মাদ্রাসা ছাত্রী লিপি বেগম সাগর দিঘীতে গোসল করতে যায়। গোসল শেষ করে ফেরার পথে আগ থেকেই উৎপেতে থাকা মাদকাসক্ত নূর খাঁ প্রাণনাশের জন্য ধাঁরালো দা দিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় লিপির উপর। এক পর্যায়ে লিপির বাম হাতে দা দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে।

লিপির শোর চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এসে উদ্ধার করে তাকে বানিয়াচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে সদর হাসপাতালে প্রেরণ করার নির্দেশ প্রদান করেন দায়িত্বরত চিকিৎসক। সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর লিপির অবস্থা আরো অবনতি হলে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন সেখানকার চিকিৎসক।

খবর পেয়ে বানিয়াচং থানার এসআই হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে মাদকাসক্ত নূর খাঁর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমানের দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ।

এসআই হুমায়ুন কবির জানান, পরিস্থিতি আপাদত শান্ত রয়েছে। যে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা এড়াতে পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে।

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ge-418" />