বাহুবলে দুই সিএনজি চালকের কারাদণ্ড

বাহুবল প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় আইন অমান্য করার দায়ে দুই সিএনজি অটোরিক্সা চালকে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

মঙ্গলবার (০৩ অক্টোবর) বিকেলে আইন অমান্য করে রাস্তায় যানবাহন পার্কিং ও যাত্রী উঠানামা করার অপরাধে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এ অপরাধে ৫টি সিএনজি অটোরিক্সাও আটক করা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন বাহুবল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রে জসিম উদ্দীন।

দন্ডপাপ্ত সিএনজি অটোরিক্সা চালকরা হলেন, বাহুবল উপজেলার আলাপুর গ্রামের পিতা জিলানীর ছেলে মোঃ মর্তুজ আলী(২৫) ও একই উপজেলার বৈদ্যনাথ গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে মোঃ সাজিদ মিয়া(৩০)।

জানা যায়, বাহুবল বাজারের যানজট নিরসনকল্পে সংশ্লিষ্ট সকলের সমন্বয়ে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক কার্যকর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। উক্ত সিদ্ধান্তের আলোকে নির্ধারিত জায়গায় বিভিন্নমূখি যানবাহন যেমন লেগুনা/ইমা ও সিএনজির সুনিদৃষ্ট স্টেন্ড স্থাপন করা হয়েছে। যার ফলে বাহুবল বাজারের যানজট নিরসন হয়েছে।

বাহুবলের জনগণের দীর্ঘ দিনের দাবীর প্রেক্ষিতে তাদের ভোগান্তি লাঘবে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বর্তমানে যানজট নিরসনের ফলে এ এলাকার হাজার হাজার মানুষ উপকৃত হচ্ছে।

বাহুবল থানার সামন থেকে করাঙ্গী ব্রিজের অপর পার পর্যন্ত সকাল ৯ টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে সকল প্রকার যানবাহন পার্কিং এবং যাত্রী উঠা-নামা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তথাপি কিছু কিছু ক্ষেত্রে আইন অমান্য করে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও যাত্রী উঠা-নামা করছে। এদের ব্যাপারে ইতোমধ্যে বিভিন্ন শাস্তি মূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। জনকল্যানে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে এবং আইন অমান্যকারীদের বিরোদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা অব্যাহত রয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার ৫টি সিএনজি ও দুজন চালককে আটক করা হয়েছে। তারা যথাযথ কর্তৃপক্ষের আইন সঙ্গত আদেশ অমান্য করায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে বাংলাদেশ দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ১৮৮ ধারা মোতাবেক তাদের প্রত্যেককে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজহারুল হক বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

ge-418" />