1. info@jonomoth.com : admi2017 : জনমত নিউজ
  2. jonomoth24@gmail.com : Jonomoth .com : Jonomoth News .com

স্বেচ্ছাশ্রমে সাতছড়িতে ত্রিপুরাপল্লী বাঁধ নির্মাণ করলেন ব্যারিস্টার সুমন

আব্দুর রাজ্জাক রাজু : স্বেচ্ছাশ্রমে চুনারুঘাটের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের পাশে ত্রিপুরা পল্লীতে সর্ববৃহৎ বাঁধ নির্মাণ করলেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। এ বাঁধ নির্মাণে পাহাড়ি ঢলে ভেঙ্গে পড়া ত্রিপুরা পল্লীবাসী রক্ষা পাবে। বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ি ঢলে খরস্্েরাতা সাতছড়ি ছড়াটি মারমুখি হয়ে উঠে। ফলে সাতছড়িতে বসাবসরত ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর ঘরবাড়ি ভেঙ্গে ছড়ার পানিতে ভেসে যায়। দুঃখ গাঁথা আদিবাসী জনগোষ্ঠীর শেষ সম্বল বিটে মাটি যখন পানিতে ভেসে যায়, তখন বুক পাঠা কান্না থামাতে সরকারি অপ্রতুল্য সাহায্য দিয়ে দায় সাড়া হয়ে যায়। এভাবে বিটেবাড়ি ভেঙ্গে গেলেও কেউ এগিয়ে আসেনি। সরকারের কয়েকটি দপ্তরে আদিবাসীরা বার কয়েক যোগাযোগ করেও আশারবাণী ছাড়া কিছুই পাননি। কিছুদিন পূর্বে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের প্রসিকিউটর ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন সাতছড়িতে গেলে ত্রিপুরা পল্লীবাসী তাদের দুখের কথা বলেন। তিনি ত্রিপুরা পল্লী রক্ষা বাধটি পরিদর্শন করে কাঠের বল্লী ও বালি ভর্তি বস্তা ফেলে বাঁধটি নির্মানের উদ্যোগ নেন। এ যেন প্রকৃতির সাথে যুদ্ধ। গত সপ্তাহে অর্ধশতাধিক লোকজন নিয়ে ত্রিপুরা পল্লী রক্ষা বাধ নির্মাণ কাজ শুরু হয়। প্রায় ৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধটি নির্মাণে আদিবাসী ত্রিপুরারা কিছুটা হলেও রক্ষা পাবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন মেশিন দিয়ে ছড়াটি খনন করে পানির গতিপথ পরিবর্তন করে দিলে বাঁধটি রক্ষা করা সম্ভব। এমনিতেই পাহাড়ি জীব জš’র সাথে যুদ্ধ করে আদিবাসী ত্রিপুরাদের জীবনযাত্রা। এরপরও পাহাড়ি ঢলে বিটে বাড়ি ভেঙ্গে পড়া যেন “মরার উপর খারার ঘা”। ত্রিপুরাদের জীবন যুদ্ধে তরুণ ব্যারিস্টার সুমনকে পেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন অনেক আদিবাসী নারীরা। সরকারি পৃষ্টপোষকতা ও সহযোগিতা পেলে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন ত্রিপুরা পল্লী হতে পারে দেশের সেরা পর্যটনাকর্ষন।

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর